বিকাশ অটো রিচার্জ রবি এয়ারটেল বাংলালিংক ২০২২

আমাদের ওয়েবসাইটটি দ্বারা আজকে আপনাদের বিকাশ অটো রিচার্জ রবি এয়ারটেল বাংলালিংক ২০২২ এই বিষয়টি সম্পর্কে জানানো হবে। দেশের অধিকাংশ মানুষই বর্তমানে একটি বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করেন। নানান ধরনের সুযোগ সুবিধার কারণে অনেকগুলি মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান থেকে আমরা বিকাশ কে বেছে নেই। বিকাশ কে বেছে নেওয়ার অন্যতম কারণ হলো বিকাশে যেসকল সুযোগ সুবিধা গুলো আছে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান সে সকল সুবিধা গুলি নেই। সবার থেকে আলাদা হওয়ার কারনে এবং বেশী বেশী সুবিধা দেওয়ার কারণে আমরা বেশিরভাগ মানুষই বিকাশ ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। ঠিক এমন একটি সুবিধা হল বিকাশের মাধ্যমে অটো রিচার্জ করা।

আমি মনে করি দশজনের ভেতরে একজন মানুষই এই বিষয়টি জানেন না অথবা জানলেও সেটা কিভাবে করতে হয় তা জানেন না। আপনারা যারা নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করেন তারা অবশ্যই জেনে থাকবেন যে আমরা নিয়মিত টেকনোলজি সম্পর্কিত তথ্য আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়ে আসি। আপনারা যারা এখনো বিকাশের অটো রিচার্জ সম্পর্কে জানেন না বা জেনে থাকলেও সে নিয়মটি জানেন না তাদের জন্য আজকে নিয়ে এলাম বিকাশ এর অটো রিচার্জ রবি, এয়ারটেল, বাংলালিংক।

বিকাশ অটো রিচার্জ কি??

 

এখন থেকে বিকাশ গ্রাহকেরা একটি বিশেষ সুবিধা পাচ্ছেন সেটি হলো আপনার মোবাইলের কল ব্যালান্স কখনো ফুরাবে না। আপনি বিকাশ থেকে রবি , বাংলালিংক এবং এয়ারটেল এই তিনটি নম্বরের অটো রিচার্জ সুবিধা পাবেন। অটো রিচার্জ সুবিধা কি একটিভ করার পরে আপনার মোবাইল ব্যালেন্স টাকার পরিমাণ যদি 10 অথবা তার কম হয় তাহলে অটোমেটিকালি আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে নির্ধারিত পরিমাণ রিচার্জ অ্যামাউন্ট আপনার মোবাইল ব্যালেন্স এ চলে যাবে। আপনি যেকোন সময় এই নির্ধারিত ব্যালেন্স পরিবর্তন করতে পারেন। এটি শুধুমাত্র পাবেন এয়ারটেল, বাংলালিংক এবং রবি গ্রাহকরা। একে বলা হয় বিকাশের অটো রিচার্জ।

 

এই অফারটি পাওয়ার শর্তাবলী

 

  • গ্রাহকের অবশ্যই একটি বিকাশ একাউন্ট থাকতে হবে এবং সে এই অটো রিচার্জ শুধু নিজের নাম্বারে করতে পারবেন।

 

  • শুধুমাত্র রবি, এয়ারটেল এবং বাংলালিংক এই তিনটি অপারেটরের গ্রাহকরা অটো রিচার্জ সুবিধার আওতায় আসবেন।

 

  • আপনি আপনার অটো রিচার্জ অ্যামাউন্ট 20 টাকা থেকে শুরু করে 1000 টাকা পর্যন্ত পূর্ব থেকে নির্ধারণ করে দিতে পারবেন।

 

  • আপনার মোবাইল ব্যালেন্স এর টাকা যখন 10 টাকা অথবা তার কম হয় তাহলেই তখন অটোমেটিক্যালি আপনার মূল বিকাশ একাউন্ট থেকে আপনার মোবাইলে রিচার্জ হয়ে যাবে।

 

  • এই সুবিধাটি উপভোগ করার জন্য অবশ্যই আপনার মোবাইলে বিকাশ একাউন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণে ব্যালেন্স রাখতে হবে। অর্থাৎ আপনার বিকাশ একাউন্টে টাকা থাকতে হবে তা না হলে অটো রিচার্জ এ্যাকটিভ হবে না।

 

  • বিকাশ গ্রাহক দিনে সর্বোচ্চ তিনবার অটো রিচার্জ সিস্টেম একটিভ করতে পারবে। আপনি যে পরিমাণ টাকা অটো রিচার্জ এর জন্য নির্ধারণ করেছেন সেই টাকাতে যদি কোন অফার থাকে তাহলে মোবাইল অপারেটর দারা তা সক্রিয় হতে পারে।

 

অটো রিচার্জ পদ্ধতি একটিভ করার নিয়ম

 

 

আপনারা ইতিমধ্যে জেনে ও বুঝে গেছেন যে বিকাশ থেকে অটো রিচার্জ সিস্টেম একটিভ করা যায়। এখন কিভাবে এই অটো রিচার্জ সিস্টেম একটিভ করব তা নিয়ে বিস্তারিত জানব। অনেকেই মনে করেন শুধুমাত্র অ্যাপস ব্যবহার করে বিকাশে অটো রিচার্জ সিস্টেম একটিভ করা যায়, কিন্তু তাদের ধারণা ভুল। আপনি সরাসরি ইউএসএসডি কোড ডায়াল করে অথবা বিকাশ অ্যাপস এ 2 টি মাধ্যম ব্যবহার করে বিকাশে অটো রিচার্জ সার্ভিস চালু করতে পারেন। তো চলন আমরা ধাপগুলো পর্যায়ক্রমে দেখে নি।

 

 

*247# ডায়াল করে কিভাবে বিকাশে রিচার্জ চালু করবেন?

 

 

  • এর জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন নম্বর হতে *247# ইউএসএসডি কোড ডায়াল করতে হবে।

 

  • ডায়াল করার পরে আপনার সামনে বিকাশ এর হোম পেজ আসবে সেখান থেকে আপনি মোবাইল রিচার্জ অপশনটিতে প্রবেশ করুন। 3 নাম্বার অপশন টি হচ্ছে মোবাইল রিচার্জ অপসন।

 

  • এরপরে আপনার সামনে যে ইন্টারফেসটি আসবে সেখানে আপনাকে অপারেটর চয়েজ করতে হবে।
  • আপনি আপনার বিকাশ একাউন্ট যে সিম থেকে খুলেছেন সেই সিমের অপারেটর সিলেক্ট করুন। অবশ্যই অটো রিচার্জ পেতে হলে রবি, বাংলালিংক অথবা এয়ারটেল অপারেটর এর যেকোনো একটি হতে হবে।

 

  • এরপরে আপনাকে নতুন একটি ইন্টারফেস নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে অনেকগুলো অপশন থাকবে। সেই অপশনগুলি হতে খুব ভালোভাবে লক্ষ্য করবেন 3 নম্বর অপশনটি হচ্ছে অটো রিচার্জ অপসন। আপনাকে সেই অটো রিচার্জ অপশনটিতে ঠিক করতে হবে। এরপরে অটো রিচার্জ অপশনটি কনফার্মেশন এর নতুন ওপেন হবে আপনাকে শেখানেও কনফার্ম করতে হবে।

 

  • এরপরে আপনাকে অটো রিচার্জ এর টাকার পরিমান টা সিলেক্ট করতে হবে। আপনি 20 টাকা থেকে 1000 টাকা পর্যন্ত যে কোন পরিমাণ সিলেকট করতে পারেন।

 

  • এরপরে আপনাকে বিকাশের পিন নম্বরটি বসিয়ে কনফার্ম করতে হবে। এভাবেই সম্পূর্ণ হয়ে গেল বিকাশ থেকে অটো রিচার্জ সার্ভিসটি অ্যাক্টিভ প্রক্রিয়া।

 

 

বিকাশ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ব্যবহার করে কিভাবে অটো রিচার্জ সার্ভিস চালু করবেন?

 

 

  • সর্বপ্রথম আপনাকে আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনটি থেকে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড এবং ইন্সটল করে নিতে হবে। আপনার বিকাশ এর ফোন নাম্বার এবং পিন নম্বর দিয়ে অ্যাপসটিতে লগইন করুন।

 

  • বিকাশের হোম পেজে প্রবেশ করুন। হোমপেজ প্রবেশ করে সকল আইকনগুলো হতে মোবাইল রিচার্জ আইকনটিতে ক্লিক করুন।

 

  • মোবাইল রিচার্জ আইকনটিতে প্রবেশ করার পরে আপনাকে আপনার বিকাশ এর নম্বরটি প্রবেশ করাতে হবে। অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে সেটি যেন আপনার বিকাশের নাম্বার হয় এবং নির্ধারিত তিনটি অপারেটর এর মধ্যে যেকোনো একটির নম্বর হয়।

 

  • এর পরে আপনি অটো রিচার্জ এর টাকার পরিমান টি উল্লেখ করুন। টাকার পরিমাণ উল্লেখ করার পরে আপনাকে অটো রিচার্জ সার্ভিসটি একবার কনফার্ম করতে হবে।

 

  • সার্ভিসটি কনফার্ম করার পরে আপনার বিকাশের পিন নাম্বারটি দিয়ে প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করুন। আপনি এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পরবর্তীতে আপনার মোবাইলে ব্যালেন্সের পরিমাণ 10 টাকা অথবা তার নিচে হয়ে গেলে অটো রিচার্জ সার্ভিস চালু হয়ে যাবে।

 

সার্ভিসটি নেয়ার পূর্বে জানুন

 

আপনারা যারা খুব মনোযোগ সহকারে আমাদের এই অনুচেছদ পড়েছেন তারা ইতিমধ্যে অটো রিচার্জ সার্ভিস সম্পর্কে একটি ভাল ধারণা পেয়ে গেছেন। আমাদের উপরে বর্ণিত তথ্যগুলো শতভাগ সঠিক তাই পাঠকদের কাছে অনুরোধ আমাদের পদ্ধতি বিশ্বাসের সঙ্গে ব্যবহার করতে পারেন। এখন থেকে আপনারা ইচ্ছে করলে নিজেই নিজের বিকাশ একাউন্ট থেকে অটো রিচার্জ সিস্টেম এ রিচার্জ করতে পারবেন। এতে করে আপনি যখন হঠাৎ করেই আপনার মোবাইল ব্যালেন্স ফুরিয়ে দিবেন তখন অটোমেটিক্যালি আপনার মোবাইল ব্যালেন্স এ চলে আসবে নির্দিষ্ট পরিমাণ অটো রিচার্জ ব্যালেন্স। আর একটা কথা এই সার্ভিসটি চালু করার জন্য আপনাকে কোন চার্জ প্রদান করতে হবে না। তাই বলা যায় বিকাশের একটি অন্যতম একটি সার্ভিস।

 

আমাদের শেষ কথা

 

আমাদের অনুচ্ছেদ টি আপনাদের কেমন লাগলো এবং বিকাশ অটো রিচার্জ রবি এয়ারটেল বাংলালিংক ২০২২ করতে যদি সমস্যার সম্মুখীন হন তাহলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানিয়ে দেবেন। আপনাদের যদি বিকাশ সম্পর্কে কোন কিছু জানার থাকে তাহলে আপনাদের প্রশ্নটিই আমাদের কমেন্ট বক্সে করুন। আমরা চেষ্টা করবো আপনাদের সেই প্রশ্নের উত্তর সম্বলিত একটি অনুচ্ছেদ নিয়ে আসতে। আমরা বিকাশ এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে তা আপনাদের মাঝে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করি। আমি অবশ্যই অনুচ্ছেদ লেখার আগে একবার নিজে নিজেই প্রক্রিয়া গুলি এপ্লাই করি। তাই আমাদের প্রক্রিয়া গুলি হয় শতভাগ সঠিক।

 

বর্তমানে বিকাশ বাংলাদেশের সব মোবাইলভিত্তিক আর্থিক লেনদেন প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছে। প্রথম অবস্থানে থাকার কারণেই তারা অনেক সুযোগ-সুবিধা দিতে পারছে। আমাদের ওয়েবসাইটটি বেশি বেশি করে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন। আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদের সকলকে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *